স্টাডি সলিউশন্সের গ্রাজুয়েট ফাইভ হানড্রেড প্রজেক্ট

0
125
বিদেশে উচ্চশিক্ষা

লোকাল মেধাকে গ্লোবাল মেধায় রূপান্তরে ‘গ্রাজুয়েট ফাইভ হানড্রেড’ একটি অনন্য উদ্যোগ। উদ্যোগটি নিয়েছে বিদেশে উচ্চশিক্ষার স্বপ্নপূরণে কাজ করা প্রতিষ্ঠান স্টাডি সলিউশন্স। পাঁচশত বাংলাদেশি শিক্ষার্থীকে ব্রিটিশ গ্রাজুয়েট হিসেবে তৈরির লক্ষ্যে প্রজেক্টটি হাতে নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রজেক্টটির ব্যাপারে স্টাডি সলিউশন্সের প্রতিষ্ঠাতা ও চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার এরশাদ আহমেদ নিশান বলেন, বিশ্বায়নের এই যুগে নিজেকে বদলে দিতে বিশ্বমানের শিক্ষা প্রয়োজন। তাইতো বাংলাদেশের অনেক শিক্ষার্থী বিদেশে পড়তে যাবার কথা ভাবেন। অনেকে পড়াশোনার জন্য বিদেশে যেতে চান। অনেকে যেতে চান ভালো ভবিষ্যৎ তৈরির চিন্তা মাথায় নিয়ে। এজন্যই আমাদের গ্রাজুয়েট ফাইভ হানড্রেড প্রজেক্ট।

প্রজেক্টির উদ্দেশ্য হচ্ছে, এমন কিছু ব্রিটিশ গ্রাজুয়েট তৈরি করা- যারা যুক্তরাজ্য থেকে শিক্ষা নিয়ে দেশ ও জাতি গড়ায় ভূমিকা রাখবে। যারা এমন দক্ষ মানব সম্পদ হিসেবে গড়ে ওঠবে যাতে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে।

তিনি আরো বলেন, বিদেশে উচ্চশিক্ষায় বিনাখরচে সেরা সেবা দিয়ে আগ্রহীদের বিশ্বস্ত বন্ধুতে পরিণত হয়েছে স্টাডি সলিউশন্স। অনেক প্রতিষ্ঠানের ভিড়েও দ্রুততর সময়ের মধ্যেই শিক্ষার্থীরা শতভাগ আস্থা রাখতে পারছে। বিদেশগামী শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের নির্ভরতা অর্জন করে স্বস্তির আশ্রয়ে পরিণত হয়েছে। জীবনে সাফল্যের সিঁড়ি গড়তে সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালে গ্রাজুয়েট হানড্রেড প্রজেক্ট চালু করেছিল স্টাডি সলিউশন্স। যেটি শিক্ষার্থীদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলে। সাফল্যের এই ধারাবাহিকতা অক্ষুন্ন রাখতেই এবারের গ্রাজুয়েট ফাইভ হানড্রেড প্রজেক্ট। প্রতিষ্ঠানটির হেড অফিস ঢাকার বনানীতে।

এছাড়াও দেশের সিলেট, চট্টগ্রাম ও মৌলভীবাজারে শাখা অফিস রয়েছে। বাংলাদেশে যেসকল শিক্ষার্থী উচ্চশিক্ষার জন্য বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে ইচ্ছুক তাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি, পড়াশুনা, টিউশন ফি ব্যবস্থাপনা এবং পড়াশুনার পাশাপাশি কাজ সংক্রান্ত বিষয়ে সার্বিক সহযোগিতা করে আসছে বিদেশে উচ্চশিক্ষায় পরামর্শ দানকারী এই প্রতিষ্ঠানটি।

ঘোষণা

আপনিও লিখুন


প্রিয় পাঠক, আপনিও লিখতে পারেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্সে। শিক্ষা, ক্যারিয়ার বা পেশা সম্পর্কে যে কোনো লেখা আমাদের কাছে পাঠিয়ে দিন। পাঠাতে পারেন অনুবাদ লেখাও। তবে সেক্ষেত্রে মূল উৎসটি অবশ্যই উল্লেখ করুন লেখার শেষে। লেখা পাঠাতে পারেন ইমেইলে অথবা ফেসবুক ইনবক্সে। ইমেইল : [email protected]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here