ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ কীভাবে হবেন?

ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ কীভাবে হবেন?

ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ পদটি বর্তমানে অনেক তরুণেরই প্রথম পছন্দের। ডিজিটাল এই যুগে সব কিছুতেই লেগেছে পরিবর্তনের ছোঁয়া। তারই ধারাবাহিকতায় পরিবর্তন এসেছে মার্কেটিং পেশাতেও। এখন প্রতিষ্ঠানগুলো সশরীরে মার্কেটিংয়ের চেয়ে ডিজিটাল মার্কেটিংকে প্রাধান্য দিচ্ছে। ফলে বাড়ছে ডিজিটাল মার্কেটারদের চাহিদা। এই নিবন্ধে আমরা আলোচনা করবো ডিজিটাল মার্কেটিং কী? ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ কারা? কীভাবে নাম লেখাবেন এই পেশায় ইত্যাদি।

এক নজরে দেখে নিন লুকিয়ে রাখুন

ডিজিটাল মার্কেটিং কী?

ডিজিটাল মার্কেটিং হলো যোগাযোগ মাধ্যমের সকল প্রকার আধুনিক প্রযুক্তি, বিশেষ করে ইন্টারনেটের সুবিধা ব্যবহার করে কোনো পণ্য বা সেবার প্রচারণা চালানো।

অন্যভাবে বলা যায়, ডিজিটাল ডিভাইস এবং প্রযুক্তি (মোবাইল, কম্পিউটার, ইন্টারনেট ইত্যাদি) ব্যবহার করে কোন পণ্য বা সার্ভিসের প্রচারণা করাই হলো ডিজিটাল মার্কেটিং। যেটাকে অনলাইন প্রচারণা ও বলা হয়।

উইকিপিডিয়ার মতে,
Digital marketing is the marketing of products or services using digital technologies, mainly on the Internet, but also including mobile phones, display advertising, and any other digital medium.

হাবস্পট ব্লগের মতে,
Digital marketing encompasses all marketing efforts that use an electronic device or the internet. Businesses leverage digital channels such as search engines, social media, email, and other websites to connect with current and prospective customers.

ডিজিটাল মার্কেটিং এর অনেক ধরন ও প্রকারভেদ রয়েছে এবং তা নির্ভর করে কোন ধরণের প্রচারণার জন্য এটি ব্যবহার করা হচ্ছে। যেমন-

  • সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (SEO)
  • সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং
  • কন্টেন্ট মার্কেটিং
  • ইমেইল মার্কেটিং
  • ইনফ্লুয়েন্সার মার্কেটিং
  • অ্যাফিলিয়েট মার্কেটিং
  • ভিডিও মার্কেটিং ইত্যাদি

ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ

একজন ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ মূলত একটি প্রতিষ্ঠানের জন্য অনলাইন মার্কেটিং গোলস রিসার্চ ও সম্পাদন করে থাকেন। এছাড়াও একজন ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ হিসেবে, মার্কেট রিসার্চ, অডিয়েন্স টার্গেটিং, সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশান, নিউজলেটার, ইমেল মার্কেটিং এবং আরও অনেক কিছু সম্পর্কে জানার প্রয়োজন হতে পারে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, ডিজিটাল মার্কেটিং অফিসার বা ডিজিটাল মার্কেটার নামেও অভিহিত করে থাকে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভের কাজ কী?

ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভরা সাধারণত সকল ধরনের অনলাইন মার্কেটিং কৌশলের পরিকল্পনা, বিকাশ, বাস্তবায়নের জন্য রেসপন্সেবল থাকেন। এছাড়াও, তারা নতুন ডিজিটাল বিপণনকারী এবং প্রতিষ্ঠানের অন্যান্য মার্কেটিং পরিকল্পনাও করে থাকেন। যেমন-

  • প্রতিষ্ঠানের পণ্য বা সার্ভিসকে কীভাবে অনলাইনে ভালোভাবে উপস্থাপন করা যায়, সে ব্যাপারে নতুন ধারণা দেয়া
  • পণ্য বা সার্ভিসের বিক্রি বাড়ানোর জন্য অনলাইন ক্যাম্পেইনের পরিকল্পনা করা
  • পণ্য বা সার্ভিসের ওয়েবসাইট থাকলে বিভিন্ন সার্চ ইঞ্জিনে ফলাফল দেখানোর জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া
  • পণ্য, সার্ভিস বা প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট ও সোশ্যাল মিডিয়া পেইজের জন্য কন্টেন্ট প্রস্তুত করা
  • অনলাইন ও সোশ্যাল মিডিয়া ক্যাম্পেইনের অগ্রগতি পর্যবক্ষেণ করা ও এর উপর রিপোর্ট তৈরি করা
  • ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে সেলস ও মার্কেটিং টিমের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রাখা
  • নতুন কাস্টমারদের সাথে ব্যবসায়িক সম্পর্ক তৈরি করা

ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভের কী ধরনের যোগ্যতা থাকতে হয়?

প্রতিষ্ঠানের পণ্য বা সার্ভিসভেদে যোগ্যতার ধরন আলাদা হয়।

শিক্ষাগত যোগ্যতা: অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানে এ পদের জন্য ন্যূনতম ব্যাচেলর ডিগ্রি থাকতে হবে আপনার। অনেক ক্ষেত্রে আইটি বা মার্কেটিংয়ের শিক্ষার্থীদের প্রাধান্য দেয়া হয়।

বয়স: প্রতিষ্ঠানসাপেক্ষে বয়সের সীমা নির্ধারিত হয়। সাধারণত আপনার বয়স কমপক্ষে ২২ বছর হতে হবে।

অভিজ্ঞতা: এ পেশায় অভিজ্ঞদের প্রাধান্য রয়েছে। সাধারণত ১-২ বছরের ডিজিটাল মার্কেটিং সংক্রান্ত অভিজ্ঞতা কাজে আসে।

বিশেষ দ্রষ্টব্য: ডিজিটাল মার্কেটারদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসে রয়েছে কাজ করার অফুরন্ত সুযোগ। এক্ষেত্রে সাধারণত শিক্ষাগত যোগ্যতা বা বয়স কোনো বাধা নয়। বরং আপনার দক্ষতাই এখানে সাফল্যের মূল নিয়ামক হিসেবে কাজ করবে।�

ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভের কী ধরনের দক্ষতা ও জ্ঞান থাকতে হয়?

মূলত প্রতিষ্ঠানের চাহিদার উপর দক্ষতা ও জ্ঞান দরকার হয়। সাধারণত নিচের টেকনিক্যাল দক্ষতাগুলো থাকলে প্রায় সব জায়গায় কাজ করার সুযোগ পাবেন-

  • সার্চ ইঞ্জিন অপটিমাইজেশন (SEO) সম্পর্কে ভালো জ্ঞান
  • সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং সম্পর্কে (SEM) পরিষ্কার ধারণা
  • দক্ষতার সাথে ওয়েব অ্যানালিটিক্সের টুল ব্যবহার করতে পারা
  • ওয়েব কন্টেন্ট তৈরি করার দক্ষতা
  • গ্রাফিক ডিজাইনে পারদর্শিতা
  • কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ব্যবহারে দক্ষতা
  • ঠিকভাবে সোশ্যাল মিডিয়া ক্যাম্পেইন পরিচালনা করতে পারা

এছাড়াও আপনার প্রয়োজন-

  • অনলাইন ও অফলাইনের সবচেয়ে আলোচিত বিষয়গুলোর খোঁজখবর রাখা
  • বাংলা ও ইংরেজি – দুই ভাষাতেই ভালো যোগাযোগ করতে পারা
  • কাস্টমারদের সাথে ভালো ব্যবসায়িক সম্পর্ক বজায় রাখার ক্ষমতা
  • তথ্য-উপাত্তসহ প্রতিবেদন তৈরি করতে পারা

ডিজিটাল মার্কেটাররা কোথায় কাজ করেন?

এ পদটি সাধারণত প্রাইভেট ফার্ম/কোম্পানিতে পাওয়া যায়। তবে বর্তমানে সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও প্রজেক্টে ডিজিটাল মার্কেটিং অফিসার নিয়োগ দেয়া হয়।

ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ হিসেবে অন্যান্য চাকরি

ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ চাকরির সাথে শুরু করার জন্য আপনি অনেকগুলি খুঁজতে পারেন৷ পাশাপাশি অন্যান্য যে সকল ক্যারিয়ার রয়েছে-

  • ডিজিটাল মার্কেটিং ম্যানেজার
  • কন্টেন্ট স্ট্র্যাটেজিস্ট
  • এসইও ম্যানেজার
  • সার্চ ইঞ্জিন মার্কেটিং বিশেষজ্ঞ
  • ইমেইল মার্কেটিং এক্সপার্ট

সচরাচর জিজ্ঞাসিত প্রশ্ন (FAQ)

বাংলাদেশে ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ হিসেবে চাকরি

একটি ক্রমবর্ধমান অর্থনীতি হিসাবে, বাংলাদেশে অনলাইন মার্কেটিং কেন্দ্রিক ব্যবসার প্রচার চলছে। এই নতুন যুগে, ডিজিটাল মার্কেটিং একটি প্র্যাক্টিস যা প্রায় প্রতিটি ইন্ডাস্ট্রিতেই আলো ছড়াচ্ছে। অনলাইন জব পোর্টালের মাধ্যমে আপনার পছন্দের এলাকায় যেমন- ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, রাজশাহী বিভাগ এ ডিজিটাল মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ পদে চাকরি খুঁজে পেতে পারেন।

ডিজিটাল মার্কেটিং বেতন কত?

আমাদের দেশের অধিকাংশ প্রতিষ্ঠানে এন্ট্রি লেভেলের ডিজিটাল মার্কেটার হিসাবে যোগ দিলে আপনার মাসিক বেতন গড়ে ৳২০,০০০ – ৳৩০,০০০ হবে। অভিজ্ঞতা ও পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে বেতন বাড়বে। ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের জব সার্কুলারগুলো ঘাঁটাঘাঁটি করলে একটা ব্যাপার লক্ষ করবেন। বেতনের জায়গায় অনেক সময় “Negotiable” লেখা থাকে।

ভারতে ডিজিটাল মার্কেটিং থেকে কত টাকা আয় করা যায়?

ভারতে ডিজিটাল মার্কেটারের বেতন ১ বছরের কম অভিজ্ঞতার থেকে ৮ বছরের মধ্যে ₹ ৩ লাখ থেকে ₹ ৯.৩ লাখ পর্যন্ত হতে পারে।

ডিজিটাল মার্কেটিং কি লাভজনক?

ডিজিটাল মার্কেটিং একটি লাভজনক পেশা। উচ্চ চাহিদার কারণে, এক্ষেত্রে বেতনও বেশি। আপনার দক্ষতার কারণে আপনি প্রতিষ্ঠানে আরও ভালো ভূমিকা পেতে পারেন। যা আপনাকে আপনার বেতন বাড়াতে সাহায্য করতে পারে।

ডিজিটাল মার্কেটিং এর জন্য কেমন কম্পিউটার প্রয়োজন?

ডিজিটাল মার্কেটিং এর জন্য সর্বনিম্ন core i3 হলেই হবে। ডিজিটাল মার্কেটিং করতে বড় বাজেট লাগে না। ইন্টারনেট ব্রাউজিং ও ছোট খাটো ডিজাইন করার সক্ষমতা থাকলেই চলবে।

কীভাবে শিখবেন ডিজিটাল মার্কেটিং?

মার্কেটিংয়ের উপর ব্যাচেলর ও মাস্টার্স ডিগ্রি নেবার সময় সাধারণত ডিজিটাল মার্কেটিংয়ের উপর পড়াশোনা করানো হয়। তবে আপনি যদি মার্কেটিং বা বিজনেস ব্যাকগ্রাউন্ডের না হয়ে থাকেন, তাহলে বিভিন্ন কোর্স ও ট্রেনিংয়ে অংশগ্রহণের সুযোগ রয়েছে আপনার জন্য। ইউটিউবে প্রচুর পরিমাণ রিসোর্স আছে এ সম্পর্কে। যা ফ্রিতেই আপনি শিখতে পারবেন। এছাড়া অনলাইনে দেশের বাইরে থেকেও ডিগ্রি নিতে পারেন।

তবে মূল কথা হলো শেখার সবচেয়ে ভালো উপায় হচ্ছে বাস্তব অনুশীলন। ইউটিউব বা ইন্টারনেটে দেয়া রিসোর্স দেখে শিখুন। নিজের প্রতিষ্ঠান বা সেবার প্রচারে তা অনুশীলন করুন।

সূত্র:

১. Workable
২. ক্যারিয়ারকী

 

ক্যারিয়ার, ট্রেনিং ও স্কলারশিপ সম্পর্কে
exclusive তথ্য পেতে ফেসবুক গ্রুপে
জয়েন করুন-

Career Intelligence | My Career Partner

Scroll to Top