যে ৫ অভিজ্ঞতা ছাত্রজীবনেই অর্জন করা উচিত

0
193
যে ৫ অভিজ্ঞতা ছাত্রজীবনেই অর্জন করা উচিত

ছাত্রজীবনই ভবিষ্যতের জন্য প্রস্তুতি নেয়ার উপযুক্ত সময়। এ সময়ের অভিজ্ঞতাগুলো কর্মজীবনে অন্যদের তুলনায় একজন শিক্ষার্থীকে নিঃসন্দেহে এগিয়ে রাখবে। আসুন জেনে নিই ৫ অভিজ্ঞতা সম্পর্কে, যেগুলো ছাত্রজীবনেই অর্জন করা উচিৎ।

১. গবেষণা

গবেষণার কিছু অভিজ্ঞতা থাকা এখন বেশ জরুরি হয়ে পড়েছে। আপনি কোনো প্রতিষ্ঠান কিংবা শিক্ষকের সাথে তাদের গবেষণা কার্যক্রমে সহায়তা করার মাধ্যমে গবেষণার অভিজ্ঞতা অর্জন করতে পারেন, যা ভবিষ্যতে আপনার উচ্চশিক্ষা ও চাকরির ক্ষেত্রে সাহায্য করবে।

২। লেখালেখি

বাংলা বা ইংরেজি যেকোনো ভাষায় ভালো লেখার দক্ষতা আপনাকে অন্য সবার থেকে এগিয়ে রাখবে। ফেসবুক, কোরাতে, পত্রিকা, স্কুল-কলেজ-ইউনিভার্সিটির বার্ষিক কিংবা মাসিক সাময়িকীতে লেখা দিতে পারেন। মুভি, বই পড়ে সেটার রিভিউ লিখতে পারেন। ভ্রমণের অভিজ্ঞতা লিখতে পারেন। লেখালেখির অভিজ্ঞতা আপনাকে শিক্ষাজীবন ও পেশাজীবনে সহায়তা করবে।

৩। প্রেজেন্টেশন

সুন্দর বাচনভঙ্গি, শব্দচয়ন, মোদ্দা কথা, স্বল্প সময়ে যেকোনো ব্যাপার সুন্দরভাবে উপস্থাপন করতে পারা যে কত বড় গুণ তা – যত দ্রুত বুঝবেন, ততই ভালো। যখন দেখি আমার ক্লাসমেটরা প্রেজেন্টেশন দিতে ভয় পায় তখন ওদের জন্য খুব মায়া হয়, তবে আমার প্রেজেন্টেশন দিতে বড্ড ভালো লাগে।

৪। ক্লাবিং

ক্লাব বা সংগঠন যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা আমি ভালো করেই বুঝতে পারছি। ক্লাবে আমার বক্তব্য সবার সামনে গ্রহণযোগ্য করে উপাস্থাপন করা, দলের সদস্যদের দিয়ে কাজ করিয়ে নেয়া, দলে বিবাদ মেটানো খুব ভালো করে শিখছি। তাছাড়া ভবিষ্যতে উচ্চশিক্ষা কিংবা চাকরি ক্ষেত্রে ক্লাবে থাকার দক্ষতা আপনাকে সবার থেকে এগিয়ে রাখবে। তাছাড়া কোনো ক্লাবের প্রেসিডেন্ট হতে পারলে তো কথায় নেই।

৫। সফটওয়্যার শেখা

মাইক্রোসফট ওয়ার্ড, এক্সেল, পাওয়ারপয়েন্ট শেখা। জুম, গুগল মিট, ড্রাইভ বুঝা। ফেসবুক পেইজ চালানোর অভিজ্ঞতা থাকা।
ছাত্রজীবন হেসে-খেলে যেমন পার করা যায় তেমনি এ ধরণের অভিজ্ঞতাগুলো জুড়ে নিলে মন্দ কী?

তাতে আশা করি ছাত্রজীবনের রোমাঞ্চ কমবে না, বরং বাড়বে।

লেখক : আকাশ।  B.sc Electrical and Electronic Engineering & ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

ঘোষণা

আপনিও লিখুন


প্রিয় পাঠক, আপনিও লিখতে পারেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্সে। শিক্ষা, ক্যারিয়ার বা পেশা সম্পর্কে যে কোনো লেখা আমাদের কাছে পাঠিয়ে দিন। পাঠাতে পারেন অনুবাদ লেখাও। তবে সেক্ষেত্রে মূল উৎসটি অবশ্যই উল্লেখ করুন লেখার শেষে। লেখা পাঠাতে পারেন ইমেইলে অথবা ফেসবুক ইনবক্সে। ইমেইল : [email protected]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here