কাজকর্মে উদ্দীপ্ত থাকার উপায়

0
95

মো: বাকীবিল্লাহ::
সাধারণত আমরা যখন উদ্দীপ্ত থাকি, তখন নিজেকে উজার করে দিয়ে কাজ করতে পারি। অনেক কঠিন কাজও সহজে করে ফেলতে পারি আমরা। কিন্তু বিভিন্ন কারণেই আমরা সব সময় উদ্দীপ্ত থাকতে পারি না। আসুন জেনে নিই উদ্দীপ্ত থাকার কিছু টিপস।

সুস্থ থাকুন
ক. এক গ্লাস পানি পান করুন : সকালে ঘুম থেকে উঠে এক গ্লাস পানি পানের মাধ্যমে দিনের শুরু করুন।
খ. ব্যায়াম করুন, ঘাম ঝরান : প্রতিদিনের ব্যায়াম করুন। এটি আপনার শক্তিকে সমৃদ্ধ করবে। মেজাজ ভালো রাখবে আর মানসিক চাপ দূর করবে।
গ. সামান্য ঘুমিয়ে নিন : কাজের ফাঁকে সময় পেলে সামান্য ঘুমিয়ে নিন। কারণ আপনি যখন পর্যাপ্ত বিশ্রাম নেবেন, তখন বেশি কাজ করার শক্তি পাবেন।

দিনের পরিকল্পনা
ঘ. শীর্ষ ৩ কাজ : প্রতিদিন গুরুত্ব অনুযায়ী তিনটি কাজের তালিকা করুন। সে অনুযায়ী কাজগুলো সম্পাদন করুন।
ঙ. ৫০/১০ নিয়ম : ৫০ মিনিট কাজ করুন। তারপর ১০ মিনিট ব্রেক দিন। তারপর আবার কাজে মনোনিবেশ করুন।
চ. আত্মসমালোচনা ও মূল্যায়ন : দিন শেষে অন্তত ১০ মিনিট আত্মসমালোচনা করুন। আজকের কাজগুলোর মূল্যায়ন করুন।

অব্যাহত শিক্ষা
ছ. পড়াশোনা : প্রচুর পড়ুন। কারণ এটা আপনাকে উদ্দীপ্ত থাকতে সাহায্য করবে।
জ. ব্রাউজিং : ইন্টারনেটে বিভিন্ন টিউটোরিয়াল দেখুন। বিভিন্ন গবেষণার সাথে পরিচিত হোন। এটা আপনার দক্ষতা বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে।
ঝ. ব্রেইন স্টোর্মিং : কোনো একটি বিষয় নিয়ে নিজে ভাবুন। অন্যের সাথে শেয়ার করুন। এর মাধ্যমে সৃজনশীল কোনো আইডিয়া বেরিয়ে আসতে পারে।

আপনাকে সুখী রাখে এমন বিষয়ে মনোযোগ দিন
ঞ. সফলতার দিকে তাকান : প্রতিদিন সকালে আপনার ১০টি সফলতার কথা ভাবুন। এটি আপনার সুখানুভুতি বাড়িয়ে দেবে।
ট. ডেস্ক পরিষ্কার করুন : কর্মক্ষেত্রে আপনার ডেস্ক বা রুমটি পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন। সবকিছু গুছিয়ে রাখুন। এতে কাজে আপনার মনযোগ বাড়বে।
ঠ. শখ পূরণে নজর দিন : আপনার প্রিয় কাজগুলো করার জন্য একটু সময় রাখুন। সেটা হতে পারে বাইক চালানো কিংবা অন্য যে কোনো কিছু। এতে করে আপনার মন ভালো থাকবে। কাজে আসবে গতি।

ঘোষণা

আপনিও লিখুন


প্রিয় পাঠক, আপনিও লিখতে পারেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্সে। শিক্ষা, ক্যারিয়ার বা পেশা সম্পর্কে যে কোনো লেখা আমাদের কাছে পাঠিয়ে দিন। পাঠাতে পারেন অনুবাদ লেখাও। তবে সেক্ষেত্রে মূল উৎসটি অবশ্যই উল্লেখ করুন লেখার শেষে। লেখা পাঠাতে পারেন ইমেইলে অথবা ফেসবুক ইনবক্সে। ইমেইল : [email protected]
Previous articleস্কুল শিক্ষার্থীদের অবস্থা : সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ
Next articleসেরা পেশা কোনটি?
গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলার পাথরঘাটাতে। থাকেন ঢাকার সাভারে। পড়াশোনা করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে- সরকার ও রাজনীতি বিভাগ থেকে অনার্স, মাস্টার্স । পরে এলএলবি করেছেন একটা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তাঁর লেখালেখি মূলত: ক্যারিয়ার বিষয়ে। তারই সূত্র ধরে সম্পাদনা ও প্রকাশ করছেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্স নামে এই ম্যাগাজিনটি। এছাড়া জিটিএফসি গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে কর্মরত। ভিডিও তৈরি ও সম্পাদনা, ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক ডিজাইন এবং পাবলিক লেকচারের প্রতি আগ্রহ তাঁর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here