যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষায় ‘ফুলব্রাইট ফরেন স্টুডেন্ট প্রোগ্রাম’

ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্স ডেস্ক
যুক্তরাষ্ট্রে উচ্চশিক্ষার জন্য হাজারো শিক্ষার্থীর প্রতীক্ষার শেষ নেই। সেই দেশে পড়াশোনার অন্যতম সম্মানজনক বৃত্তির নাম ‘ফুলব্রাইট ফরেন স্টুডেন্ট প্রোগ্রাম’। বিশ্বের অন্যতম নামকরা এ বৃত্তিপ্রাপ্ত ৫৩ জন জয় করেছেন নোবেল পুরস্কার আর ৭৮ জন পেয়েছেন পুলিৎজার পুরস্কার। ফুলব্রাইট প্রোগ্রামে যুক্তরাষ্ট্রের বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নের ফি থেকে শুরু করে শিক্ষার্থীদের থাকা-খাওয়া-যাতায়াতসহ যাবতীয় খরচ দেয়া হয়।

ফুলব্রাইটের আবেদন
বাংলাদেশের যেকোনো বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রিধারী ও কমপক্ষে দুই বছর কর্ম-অভিজ্ঞতা আছে, এমন মেধাবী শিক্ষার্থীরা যুক্তরাষ্ট্রের ফুলব্রাইট ফরেন স্টুডেন্ট প্রোগ্রামে আবেদন করতে পারেন। আবেদনকারীর বয়সসীমা ২৪ থেকে ৩০ বছর। প্রতিবছর ছয় থেকে সাতজন শিক্ষার্থী ফুলব্রাইট ফরেন স্টুডেন্ট প্রোগ্রামের জন্য নির্বাচন করা হয়।

অনলাইনের মাধ্যমে বৃত্তির জন্য আবেদন করতে হয়। আবেদনের সময় অনলাইনে আবেদনপত্র ও সব অ্যাকাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট ও সার্টিফিকেটের স্ক্যান কপি আপলোড করতে হয়। এ ছাড়া তিনটি লেটার অব রেফারেন্সও আপলোড করতে হয়। এ ছাড়া টোয়েফল স্কোর ও জিআরই/জিম্যাট স্কোর জমা দিতে হয়। আবেদনকারী টোয়েফল স্কোর ও জিআরই/জিম্যাট স্কোর ছাড়াই প্রাথমিক আবেদন করতে পারেন, কিন্তু প্রাথমিকভাবে নির্বাচিত হওয়ার পরে অবশ্যই স্কোর জমা দিতে হবে।

সাধারণত, এপ্রিল-মে-জুন মাসে এই প্রোগ্রামের জন্য অনলাইনে আবেদন গ্রহণ করা হয়। ফুলব্রাইট ফরেন স্টুডেন্ট প্রোগ্রাম-সংক্রান্ত যেকোনো তথ্যের জন্য ঢাকাস্থ আমেরিকান সেন্টারে যোগাযোগ করা যেতে পারে। বিস্তারিত জানা যাবে: foreign.fulbrightonline.org ওয়েবসাইট এবং http://dhaka.usembassy.gov/programs_for_undergrad_grad_students.html লিংক থেকে।

এ ছাড়া অনলাইনে আবেদনের স্টেপ বাই স্টেপ নির্দেশনা দেখুন এই লিংকে http://photos.state.gov/libraries/bangladesh/5/ece/FLTA_Application_Instructions.pdf

About সম্পাদক

মো: বাকীবিল্লাহ। গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলার পাথরঘাটাতে। থাকেন ঢাকার মতিঝিলে। পড়াশোনা করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে -- সরকার ও রাজনীতি বিভাগ থেকে অনার্স, মাস্টার্স । পরে এলএলবি করেছেন একটা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তাঁর লেখালেখি মূলত: ক্যারিয়ার বিষয়ে। তারই সূত্র ধরে সম্পাদনা করছেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্স নামে এই ম্যাগাজিনটি। এছাড়া জিটিএফসি গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে কর্মরত।

View all posts by সম্পাদক →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *