কলেজ ভর্তি ২০২০ : সব তথ্য এক জায়গায় | College admission 2020

0
ভর্তি

ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্স : মহামারী করোনার কারণে বিলম্বিত হলেও ৯ আগস্ট থেকে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে কলেজে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ওই দিন সকাল ৭টা থেকে এ কার্যক্রম শুরু হয়। কলেজ ভর্তি ২০২০ সংক্রান্ত সব তথ্য নিয়মিত আপডেট হবে এই পেজে। প্রয়োজনে পেজটি বুকমার্ক করে রাখুন। এছাড়া পড়াশোনা ও ক্যারিয়ার সংক্রান্ত বিভিন্ন টিপস ও তথ্য পেতে ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্সের সাথে থাকুন।

বিভিন্ন সোর্সে প্রাপ্ত সংবাদগুলো যুক্ত হবে এখানে-

একাদশে ভর্তির সময়সীমা বেড়েছে

একুশে টিভি; ৯ সেপ্টেম্বর ২০২০: একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির সময়সীমা আরও দুই দিন বাড়ানো হয়েছে। ১৩, ১৪ এবং ১৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ভর্তির  সুযোগ দেয়ার কথা থাকলেও সে সময় বাড়িয়ে ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করা হয়েছে। একই সঙ্গে ভর্তিতে প্রাথমিকভাবে একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট বা প্রশংসাপত্র জমা করতে হবে। চলমান করোনা মহামারীর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর এসব কাগজ কলেজে জমা দিতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। গতকাল মঙ্গলবার এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে আন্ত:শিক্ষা বোর্ড সমন্বয় উপ কমিটি।

কমিটির সভাপতি ও ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান মু. জিয়াউল হক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, কোভিড-১৯ মহামারির কারণে স্বাস্থ্য বিধি অনুসরণের লক্ষ্যে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট, প্রশংসাপত্রসহ কোন প্রকার প্রামাণ্যপত্র জমা নেয়ার প্রয়োজন নেই। একই কারণে পূর্ব নির্ধারিত ভর্তির সময়সীমা ১৩, ১৪ এবং ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে বৃদ্ধি করে ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত করা হলো।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও জানানো হয়েছে, কোভিড-১৯ মহামারির উন্নতি হলে সুবিধামত সময়ে সত্যায়িত একাডেমিক ট্রান্সক্রিপ্ট, প্রশংসাপত্রসহ প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা নিতে বলা হয়েছে। তবে কোটা পাওয়া শিক্ষার্থীদেরকে অবশ্যই কোটাপ্রাপ্তি উপযুক্ত প্রমাণ সনদ দাখিল করে ভর্তি হতে হবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

জানা গেছে, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির প্রথম ধাপে ১৩ লাখ ৪২ হাজারের বেশি আবেদন পড়লেও পছন্দের কলেজে মনোনয়ন পেয়েছিল ১২ লাখ ৭৭ হাজার ৭২১ জন শিক্ষার্থী। দ্বিতীয় ধাপের আবেদন ও প্রথম ধাপের মাইগ্রেশনের পর আরও ২ লাখ ৪০ হাজার ৬৫৭ জন শিক্ষার্থী একাদশ শ্রেণিতে বিভিন্ন কলেজে ভর্তির মনোনয়ন পেয়েছে। তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন গ্রহণ চলেছে ৭ ও ৮ সেপ্টেম্বর। পছন্দক্রম অনুযায়ী ২য় মাইগ্রেশনের ফল এবং ৩য় পর্যায়ের আবেদনের ফল ১০ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায়। তৃতীয় পর্যায়ে শিক্ষার্থীর সিলেকশন নিশ্চায়ন করতে হবে ১১ সেপ্টেম্বর থেকে ১২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত। সিলেকশন নিশ্চায়ন না করলে আবেদন বাতিল বলে গণ্য হবে আর কলেজভিত্তিক চূড়ান্ত ফল প্রকাশ হবে ১৩ সেপ্টেম্বর সকাল ৮টায়। আর বর্ধিত সময় অনুসারে শিক্ষার্থীরা ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কলেজে ভর্তির সুযোগ পাবেন। এর আগে গত ৯ আগস্ট সকাল সাতটা থেকে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইন ভর্তির কার্যক্রম শুরু হয়।

উল্লেখ্য, গত ৯ আগস্ট সকাল সাতটা থেকে ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষে একাদশ শ্রেণিতে অনলাইন ভর্তির কার্যক্রম শুরু হয়। ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে ভর্তি কার্যক্রম শেষ হবে। চলতি বছর ৯টি সাধারণ শিক্ষা বোর্ড, মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড এবং কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে মোট পরীক্ষায় অংশ নেয় ২০ লাখ ৪০ হাজার ২৮ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছিলেন।

কলেজের ভর্তি ফি কোথায় কত?

সময় টিভি; ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ : চলছে একাদশ শ্রেণীতে ভর্তি প্রক্রিয়া। এবার সরকার নির্ধারণ করে দিয়েছে একাদশ শ্রেণীতে সর্বোচ্চ কত টাকা নেওয়া যাবে ভর্তি ফি। আন্তঃশিক্ষা বোর্ডের সমন্বয় সাব-কমিটি এই ফি নির্ধারণ করে শিক্ষার্থীদের নির্দেশনা দিয়েছেন, শিক্ষার্থীরা যাতে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরুর আগেই বেসরকারি কলেজের ভর্তি ফিসহ মাসিক বেতন ও যাবতীয় খরচের বিষয়ে অবহিত হয়।

মফস্বল বা পৌর (উপজেলা) এলাকার এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তিতে সেশন ফিসহ ভর্তি ফি সর্বোচ্চ ১ হাজার টাকা, পৌর (জেলা সদর) এলাকায় ২ হাজার টাকা এবং ঢাকা মহানগর ছাড়া অন্য মেট্রোপলিটন এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো ৩ হাজার টাকার বেশি আদায় করতে পারবে না।

এমপিওভুক্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ভর্তিতে মেট্রোপলিটন এলাকায় অবস্থিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠনগুলো ৫ হাজার টাকার বেশি অর্থ আদায় করতে পারবে না। ঢাকা মেট্রোপলিটন এলাকার আংশিক এমপিওভুক্ত বা এমপিও বহির্ভুত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে উন্নয়ন ও এমপিও বহির্ভূত শিক্ষকদের বেতন-ভাতা দেওয়ার জন্য শিক্ষার্থী ভর্তির সময় ভর্তি ফি, সেশন চার্জ ও উন্নয়ন ফিসহ বাংলা মাধ্যমে সর্বোচ্চ ৭ হাজার ৫শ টাকা এবং ইংরেজি ভার্সনে সর্বোচ্চ ৮ হাজার ৫শ টাকা নিতে পারবে।

কোন প্রতিষ্ঠান এবার উন্নয়ন খাতে ১ হাজার ৫শ টাকার বেশি আদায় করতে পারবে না বলে বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রতি শিক্ষার্থীর কাছ থেকে রেড ক্রিসেন্ট ফি বাবদ ১২ টাকা নিতে পারবে। কোনো শিক্ষার্থীর পাঠ বিরতি থাকলে ও বিলম্বে ভর্তি হলে তাকে ১৫০ টাকা পাঠ বিলম্ব ফি এবং ১০০ টাকা বিলম্ব ভর্তি দিতে হবে।

সরকারি পরিপত্র অনুযায়ীসরকারি কলেজগুলোকে ফি সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে। অনুমোদিত ফির অতিরিক্ত কোনো অর্থ না দেওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়ছে।

বর্তমান কোভিড-১৯ এবং অভিভাবকদের আর্থিক অস্বচ্ছলতার বিষয় বিবেচনা করে দরিদ্র, মেধাবী ও প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী ভর্তিতে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠাগুলোকে উল্লিখিত ফিগুলো যতদূর সম্ভব মওকুফ করতে নির্দেশনা দিয়ে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি।

একাদশে ভর্তিতে মনোনীত শিক্ষার্থীদের তালিকা প্রকাশ

যুগান্তর, ২৫ আগস্ট ২০২০ : একাদশ শ্রেণিতে ভর্তির জন্য প্রথম পর্যায়ে শিক্ষার্থীকে মনোনীত করে তালিকা প্রকাশ করেছে সরকার। প্রথম পর্যায়ে ১২ লাখ ৭৭ হাজার ৭২১ জন তালিকা মনোনীত করা হয়েছে।

এ বিষয়ে ঢাকা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক অধ্যাপক মো. হারুন-আর-রশিদ সাংবাদিকদের বলেন, প্রথম পর্যায়ে ভর্তির জন্য ১২ লাখ ৭৭ হাজার ৭২১ জনকে মনোনীত করা হয়েছে। এদের ২৬ থেকে ৩০ অগাস্টের মধ্যে সিলেকশন নিশ্চয়ন (যে কলেজের তালিকায় নাম এসেছে ওই কলেজেই যে শিক্ষার্থী ভর্তি হবেন তা এসএমএসে নিশ্চিত করা) করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে সিলেকশন নিশ্চয়ন না করলে আবেদন বাতিল হবে।

তিনি বলেন, ভর্তির জন্য মনোনীত শিক্ষার্থীরা রোল এবং রেজিস্ট্রেশন নম্বর দিয়ে ওয়েবসাইট থেকে ফল জানতে পারবেন। এছাড়া তাদের মোবাইলে এসএমএস করেও ফল জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে প্রথম পর্যায়ে ১৩ লাখ ৪২ হাজার ৬৯৩ জন সঠিকভাবে আবেদন করলেও তাদের মধ্যে ৬৪ হাজার ৯৭২ জন ভর্তির জন্য কোনো কলেজ পাননি। এরা যেসব কলেজ তাদের পছন্দের তালিকায় রেখেছিলেন তাদের প্রাপ্ত নম্বর অনুযায়ী সেসব কলেজের মেধাক্রমে তারা স্থান পাননি। এসব শিক্ষার্থী ঠিকভাবে কলেজ নির্বাচন করতে না পারায় প্রথম দফায় কলেজ পাননি।

ঢাকা বোর্ডের কলেজ পরিদর্শক আরও বলেন, “প্রথম দফায় যারা কলেজ পাননি তাদের চিন্তার কোনো কারণ নেই। এরা দ্বিতীয় দফায় আবেদন করতে পারবেন। দ্বিতীয় দফায় আবেদন করতে তাদের আর ফি জমা দিতে হবে না। তবে প্রথম দফার তালিকায় যারা আছেন তাদের মধ্য থেকে যারা কলেজ নিশ্চয়ন করবেন না, তারা দ্বিতীয় দফায় আবেদন করতে চাইল নতুন করে ফি জমা দিতে হবে।

——————

সূত্র : যুগান্তর
৮ আগস্ট ২০২০

দেশের সব সরকারি-বেসরকারি কলেজগুলোর একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে আগামী ২০ আগস্ট পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন করা যাবে। তবে এবার শুধু অনলাইনের (www.xiclassadmission.gov.bd) মাধ্যমে এ ভর্তির আবেদন করা যাবে।

সব প্রক্রিয়া শেষ করে আগামী ১৩ থেকে ১৭ সেপ্টেম্বর কলেজগুলোতে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে বলে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি জানিয়েছে।

জানা গেছে, এ বছর একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিতে মুক্তিযোদ্ধা, প্রবাসী ও বিকেএসপি কোটা বহাল থাকছে। তবে, অন্যান্য কোটা নিয়ে প্রস্তাবিত খসড়া নীতিমালায় কোনো কিছু উল্লেখ করা হয়নি। ভর্তি প্রক্রিয়ায় জটিলতা ও ব্যয় কমাতে এসএমএসের মাধ্যমে আবেদন প্রক্রিয়া বাতিল করা হয়েছে। শুধু অনলাইনে সর্বোচ্চ ১০টি প্রতিষ্ঠানে আবেদন করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থীর মেধা ও পছন্দ্ক্রম অনুসারে তাকে নির্দিষ্ট কলেজে ভর্তির জন্য মনোনীত করা হবে।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সূত্র সংবাদমাধ্যমকে জানায়, ভর্তির সময় পরিবর্তন হলেও ইতিমধ্যে প্রকাশিত নীতিমালা অনুসারে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে।

এবার দেশের সরকারি-বেসরকারি ৭ হাজার ৪৭৪টি কলেজের একাদশ শ্রেণিতে ২৫ লাখ আসন রয়েছে। আর মাধ্যমিকে উত্তীর্ণ হয়েছে ১৬ লাখ ৯০ হাজার ৫২৩ জন শিক্ষার্থী। তারা সবাই ভর্তি হলেও আরও ৮ লাখ আসন খালি থাকবে।

ইতিমধ্যে নয়টি সাধারণ বোর্ড এবং মাদ্রাসা বোর্ডের কোন কোন কলেজে একাদশ শ্রেণিতে শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে বোর্ডভিত্তিক সেই তালিকাও ওয়েবসাইটে (www.xiclassadmission.gov.bd) প্রকাশ করা হয়েছে।

এবার আবেদন ফি ও ভর্তি ফি কিছুটা বাড়ানো হয়েছে। নগদ, সোনালী ব্যাংক, টেলিটক, বিকাশ, শিউর ক্যাশ ও রকেট-এর মাধ্যমে ১৫০ টাকা আবেদন ফি জমা দিয়ে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন করা যাবে। একাদশে ভর্তি নীতিমালায় বলা হয়েছে, ২০১৮, ২০১৯ ও ২০২০ সালে মাধ্যমিক উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীরা একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হতে পারবেন। আর উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় উত্তীর্ণদের ভর্তির ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ বয়স হবে ২২ বছর।

আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি জানিয়েছে, ৯ আগস্ট সকাল ৭টা থেকে ২০ আগস্ট পর্যন্ত অনলাইনে আবেদন নেয়া হবে। ২৫ আগস্ট রাত ৮টায় প্রথম পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের ফল প্রকাশ করা হবে। প্রথম তালিকায় থাকা শিক্ষার্থীদের ২৬ থেকে ৩০ আগস্টের মধ্যে যে কলেজের তালিকায় নাম আসবে ওই কলেজেই যে শিক্ষার্থী ভর্তি হবেন তা এসএমএসে নিশ্চিত করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে সিলেকশন নিশ্চয়ন না করলে আবেদন বাতিল হবে।

৩১ আগস্ট থেকে ২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদন নেয়া হবে। পছন্দক্রম অনুযায়ী প্রথম মাইগ্রেশনের ফল এবং দ্বিতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল ৪ সেপ্টেম্বর রাত ৮টায় প্রকাশ করা হবে। ৫ থেকে ৬ সেপ্টেম্বর দ্বিতীয় পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চয়ন করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে সিলেকশন নিশ্চয়ন না করলে আবেদন বাতিল হবে।

৭ থেকে ৮ সেপ্টেম্বর তৃতীয় পর্যায়ের আবেদন নিয়ে পছন্দক্রম অনুযায়ী দ্বিতীয় মাইগ্রেশনের ফল এবং তৃতীয় পর্যায়ের আবেদনের ফল ১০ সেপ্টেম্বর প্রকাশ করা হবে। ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বর রাত ৮টা পর্যন্ত তৃতীয় পর্যায়ে নির্বাচিত শিক্ষার্থীদের সিলেকশন নিশ্চয়ন করতে হবে। এই সময়ের মধ্যে সিলেকশন নিশ্চয়ন না করলে আবেদন বাতিল হবে।

১৩ সেপ্টেম্বর রাতে কলেজভিত্তিক চূড়ান্ত ফল প্রকাশ করা হবে। আর ১৩ থেকে ১৫ সেপ্টেম্বরের মধ্যে শিক্ষার্থীদের কলেজে ভর্তি হতে হবে।

সর্বশেষ তথ্য সম্পর্কে আপডেট থাকতে আমাদের পেজটি লাইক করে ফলো করুন-

https://www.facebook.com/careerintelligencebd

এছাড়া বিশেষ অফার সম্পর্কে জানতে ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করুন।

Career Intelligence | My Career Partner

ঘোষণা

আপনিও লিখুন


প্রিয় পাঠক, আপনিও লিখতে পারেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্সে। শিক্ষা, ক্যারিয়ার বা পেশা সম্পর্কে যে কোনো লেখা আমাদের কাছে পাঠিয়ে দিন। পাঠাতে পারেন অনুবাদ লেখাও। তবে সেক্ষেত্রে মূল উৎসটি অবশ্যই উল্লেখ করুন লেখার শেষে। লেখা পাঠাতে পারেন ইমেইলে অথবা ফেসবুক ইনবক্সে। ইমেইল : [email protected]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here