লকডাউন উঠলেই ১২ ঘণ্টা অফিস!

0
68
কর্মক্ষেত্র

ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্স ডেস্ক : ভারতে লকডাউনের পর কাজের সময়কে ৮ থেকে বাড়িয়ে ১২ ঘণ্টা করে দেয়ার ক্ষমতা রাজ্য সরকারগুলোর হাতে তুলে দিতে দ্রুত অর্ডিন্যান্স আনতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের খবরে জানা যায়, দেশটিতে লকডাউনের পর কারখানা খুললে এই বর্ধিত ‘ওয়ার্কিং আওয়ার’ কার্যকর হতে পারে। তবে কাজের সময় বাড়লে সেই অনুপাতে পারিশ্রমিক বাড়বে কি না, সেটা এখনো স্পষ্ট নয়।

জানা গেছে, করোনা প্রকোপের জেরে বহু শ্রমিকই নিজেদের বাড়ি ফিরে গিয়েছে। এমন অবস্থায় লকডাউন উঠে গেলেই যে তারা কাজে যোগ দিতে পারবেন, তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। তাছাড়া, লকডাউন উঠে গেলেও সামাজিক দূরত্বের বিধিনিষেধ এখনই ওঠার সম্ভাবনা কম, ফলে কম শ্রমিক দিয়েই কাজ চালাতে হবে কারখানাগুলোতে। এমন অবস্থায় পণ্যের চাহিদা পূরণ করতে গেলে কাজের সময় বাড়াতে হবে বলেই মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

সম্প্রতি কেন্দ্রের উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন কয়েকটি কমিটির বৈঠকেও এ বিষয়ে একমত হয়েছেন পদস্থ আমলারা। পাশাপাশি, দেশের কিছু শ্রমিক সংগঠনের তরফেও সরকারকে অনুরোধ করা হয়েছে। তারপরই অর্ডিন্যান্স আনার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

তবে বর্তমানে দেশটি যে ফ্যাক্টরি আইন রয়েছে তাতে কোনো পূর্ণবয়স্ক শ্রমিককে দিয়ে দিনে সর্বাধিক ৮ ঘণ্টা কাজ করানো যেতে পারে। সেই আইনেই সংশোধনী আনা হবে। রাজস্থান সরকার অবশ্য এরইমধ্যে কাজের সময় বাড়িয়ে ১২ ঘণ্টা করে দিয়েছে। জানা গেছে, একই পদক্ষেপ নিতে যাচ্ছে পাঞ্জাবও। মূলত অত্যাবশ্যকীয় পণ্যের জোগান বজায় রাখার জন্যই এই পদক্ষেপ গ্রহণ করছে বলে জানিয়েছে রাজ্য সরকারগুলো।

ঘোষণা

আপনিও লিখুন


প্রিয় পাঠক, আপনিও লিখতে পারেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্সে। শিক্ষা, ক্যারিয়ার বা পেশা সম্পর্কে যে কোনো লেখা আমাদের কাছে পাঠিয়ে দিন। পাঠাতে পারেন অনুবাদ লেখাও। তবে সেক্ষেত্রে মূল উৎসটি অবশ্যই উল্লেখ করুন লেখার শেষে। লেখা পাঠাতে পারেন ইমেইলে অথবা ফেসবুক ইনবক্সে। ইমেইল : [email protected]
Previous articleশিক্ষার্থীদের জন্য উপকারী ৯টি ওয়েবসাইট
Next articleSSC result 2020 | All Education Board Result | educationboardresults.gov.bd
গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলার পাথরঘাটাতে। থাকেন ঢাকার সাভারে। পড়াশোনা করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে- সরকার ও রাজনীতি বিভাগ থেকে অনার্স, মাস্টার্স । পরে এলএলবি করেছেন একটা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তাঁর লেখালেখি মূলত: ক্যারিয়ার বিষয়ে। তারই সূত্র ধরে সম্পাদনা ও প্রকাশ করছেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্স নামে এই ম্যাগাজিনটি। এছাড়া জিটিএফসি গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে কর্মরত। ভিডিও তৈরি ও সম্পাদনা, ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক ডিজাইন এবং পাবলিক লেকচারের প্রতি আগ্রহ তাঁর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here