সৌদি আরবে স্কলারশিপ

বাংলাদেশি মুসলিম শিক্ষার্থীদের স্নাতক পর্যায়ে স্কলারশিপ দিচ্ছে সৌদি আরবের মাদীনা মুনাওয়ারার নগরীতে অবস্থিত তাইবাহ ইউনিভার্সিটি। এখনই ১৪৪২ হিজরী (২০২০-২১) সনের শিক্ষাবর্ষে চার বছর মেয়াদি ব্যাচেলর (অনার্স) ডিগ্রিতে ফুল স্কলারশিপে আবেদন করা যাচ্ছে।

তাইবাহ ইউনিভার্সিটি বিশ্বের আটশত’ ইউনিভার্সিটির মাঝে রেঙ্কিং এ ৯১-১০০তম এবং সৌদী আরবে ১৫তম স্থানে থাকা অন্যতম। স্কলারশীপে শিক্ষার্থীদের জন্য আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্বলিত আবাসন ব্যবস্থা রয়েছে। এছাড়াও মাসিক স্টাইপেন্ড, বই ক্রয়ের জন্য বার্ষিক অর্থ প্রদান, ট্রান্সপোর্ট সুবিধা, হেলথ ইন্সুরেন্স, প্রতি বছর দেশে আসা-যাওয়ার জন্য এয়ার টিকেট স্কলারশীপ পেয়ে সৌদিতে পৌছলে ১৭০০ রিয়াল প্রস্তুতি ভাতা প্রদান, বিবাহিতদের জন্য ফ্যামিলি ভিসা প্রদান ও আবাসন সহ হজ্জ্ব ও উমরা্র সুযোগ প্রদান রয়েছে।

তাইবাহ ইউনিভার্সিটির শিক্ষার মান ঠিক রাখতে রয়েছে— শিক্ষা কারিকুলাম সম্পূর্ণ আধুনিক, কম্পিউটারাইজড ল্যাব। অসংখ্য কিতাব সমৃদ্ধ লাইব্রেরী এবং ই-লাইব্রেরী। ডিবেট, সেমিনার-সিম্পোজিয়াম। প্রফেসরদের তত্বাবধানে মাসিক ঐতিহাসিক স্থান সমূহে সফর। স্কাউট, জিমনেসিয়াম, মার্শাল আর্ট, ফটোগ্রাফি, চারুকলা, সাঁতার প্রশিক্ষণসহ আরো অনেক কিছু।

যে বিষয়ে অধ্যয়ন করা যাবে: তাফসীর, কিরাত, ইসলামিক স্টাডিজ ও আরবী ভাষা নিয়ে অধ্যয়ন করা যাবে। ফার্মাসি, আর্কিটেকচার, কম্পিউটার সাইন্স, ইংলিশ, ট্যুরিজম, জার্নালিজম, ইকোনোমিক্স সহ প্রায় সকল সাব্জেক্ট।

স্কলারশিপে শিক্ষার্থীদের বয়স ২৫ বছরের বেশি হতে পারবে না। সৌদি আরবের অন্য কোনো ইউনিভার্সিটি বা কোন সংস্থা কর্তৃক স্কলারশীপ পেয়েছে এমন হলে আবেদন বাতিল হয়ে যাবে। ইন্টারমিডিয়েট/আলিম সার্টিফিকেট ও মার্কশীট। পাসপোর্ট। কমপক্ষে ৬ মাস মেয়াদ থাকতে হবে। মেডিক্যাল সার্টিফিকেট। আরবী ভাষায় দক্ষতার সার্টিফিকেট । তাজকিয়া (রিকেমন্ডেশন) ২টি। মেয়েরাওআবেদনকরতে_পারবে,তবে মেয়ের মাহরাম তথা বৈধ গার্ডিয়ানের ইকামার কপি আবেদনের সাথে সংযুক্ত করতে হবে।

About সম্পাদক

মো: বাকীবিল্লাহ। গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলার পাথরঘাটাতে। থাকেন ঢাকার সাভারে। পড়াশোনা করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে -- সরকার ও রাজনীতি বিভাগ থেকে অনার্স, মাস্টার্স । পরে এলএলবি করেছেন একটা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তাঁর লেখালেখি মূলত: ক্যারিয়ার বিষয়ে। তারই সূত্র ধরে সম্পাদনা ও প্রকাশ করছেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্স নামে এই ম্যাগাজিনটি। এছাড়া জিটিএফসি গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে কর্মরত। ভিডিও তৈরি ও সম্পাদনা, ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক ডিজাইন এবং পাবলিক লেকচারের প্রতি আগ্রহ তাঁর।

View all posts by সম্পাদক →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *