সেনাবাহিনীতে লেফটেন্যান্ট পদে নিয়োগ

লেফটেন্যান্ট পদে যোগ দিতে পারেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীতে। আবেদন করতে পারবেন ২০১৯ সালের নিয়মিত এইচএসসি পরীক্ষার্থীরাও। আবেদনের শেষ তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি।

৮৩তম বিএমএ দীর্ঘমেয়াদি কোর্সে ভর্তির বিজ্ঞপ্তি দিয়েছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। প্রশিক্ষণের পাশাপাশি চলবে পড়াশোনাও। জন্মসূত্রে বাংলাদেশের নাগরিক ও অবিবাহিতরা আবেদন করতে পারবেন। তবে সশস্ত্র বাহিনীতে কর্মরতদের বৈবাহিক অবস্থা শিথিলযোগ্য। সেনা, নৌ, বিমানবাহিনী ও সরকারি চাকরি থেকে বরখাস্ত হলে, ফৌজদারি আদালতে দণ্ডপ্রাপ্ত হলে কিংবা আইএসএসবি থেকে দুবার বাদ পড়লে আবেদন করা যাবে না। বিজ্ঞপ্তি পাওয়া যাবে bit.ly/2HBNoOI লিংকে।

আবেদনের যোগ্যতা : এসএসসি ও এইচএসসি বা সমমানের পরীক্ষায় যেকোনো একটিতে জিপিএ ৫.০০ ও অন্যটিতে ৪.৫০ পেয়ে উত্তীর্ণ হতে হবে। ইংরেজি মাধ্যমের প্রার্থীদের ‘ও’ লেভেলে ছয়টি বিষয়ের কমপক্ষে তিনটিতে ‘এ’ গ্রেড, তিনটিতে ‘বি’ গ্রেড এবং ‘এ’ লেভেলে দুটি বিষয়েই ন্যূনতম ‘বি’ গ্রেড কিংবা ‘ও’ লেভেলে কমপক্ষে দুইটিতে ‘এ’ গ্রেড, তিনটিতে ‘বি’ গ্রেড, একটিতে ‘সি’ গ্রেড এবং ‘এ’ লেভেলে দুটি বিষয়ের মধ্যে একটিতে ‘এ’ গ্রেড ও একটিতে ‘বি’ গ্রেড থাকতে হবে। আবেদন করতে পারবেন ২০১৯ সালের এইচএসসি পরীক্ষার্থীরাও। পুরুষ প্রার্থীদের উচ্চতা ৫ ফুট ৪ ইঞ্চি, ওজন ৫০ কেজি, বুকের মাপ স্বাভাবিক অবস্থায় ৩০ ইঞ্চি এবং প্রসারিত অবস্থায় ৩২ ইঞ্চি হতে হবে। নারী প্রার্থীদের উচ্চতা ৫ ফুট ২ ইঞ্চি, ওজন ৪৭ কেজি, বুকের মাপ স্বাভাবিক অবস্থায় ২৮ ইঞ্চি এবং প্রসারিত অবস্থায় ৩০ ইঞ্চি চাওয়া হয়েছে। উচ্চতা ও বয়সের সঙ্গে ওজনের সামঞ্জস্য থাকতে হবে। ১ জানুয়ারি ২০২০ তারিখে বয়সসীমা ১৭ থেকে ২১ বছর। সশস্ত্র বাহিনীতে কর্মরতদের বেলায় বয়সসীমা ১৮ থেকে ২৩ বছর।

আবেদন অনলাইনে : ২৫ জানুয়ারি থেকে আবেদন করা যাবে joinbangladesharmy.army.mil.bd ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। আবেদনের শেষ তারিখ ২৩ ফেব্রুয়ারি। আবেদন ফি বাবদ ১০০০ টাকা জমা দেওয়া যাবে ট্রাস্ট ব্যাংক টি-ক্যাশ, বিকাশ, রকেট, ভিসা বা মাস্টার কার্ডের মাধ্যমে। আবেদনের নিয়ম, ফি পরিশোধের পদ্ধতি ও অন্যান্য নিয়ম বিজ্ঞপ্তিতে দেওয়া আছে ।

বাছাইপ্রক্রিয়া :৩ থেকে ২১ মার্চ পর্যন্ত প্রাথমিক নির্বাচনী (স্বাস্থ্য ও মৌখিক) পরীক্ষা নেওয়া হবে। বিভিন্ন সেনানিবাসে নির্বাচনী পরীক্ষা হবে। বিগত বছরে বিএমএ দীর্ঘমেয়াদি কোর্সে নির্বাচিতরা জানান, বাছাই পরীক্ষায় প্রার্থীর শারীরিক ফিটনেস যাচাই করা হয়। বর্ণনা অনুযায়ী উচ্চতা, ওজন, বুকের মাপ যাচাই করা হয়। উচ্চতা এবং বয়সের সঙ্গে ওজনের সামঞ্জস্য না থাকলে বাদ দেওয়া হয়। এ ছাড়া চোখের দৃষ্টিসীমা, শারীরিক ত্রুটি বা জটিল রোগ আছে কি না দেখা হয়। মৌখিক পরীক্ষায় কী ধরনের প্রশ্ন করা হবে, তা নির্ভর করে বাছাই প্যানেলের কর্মকর্তাদের ওপর।

প্রাথমিক নির্বাচনী পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের লিখিত পরীক্ষা নেওয়া হবে। ২৪ মে লিখিত পরীক্ষা হবে প্রার্থীর সাক্ষাৎকারপত্রে উল্লিখিত কেন্দ্রে। লিখিত পরীক্ষায় প্রশ্ন করা হবে বাংলা, ইংরেজি, সাধারণ গণিত ও সাধারণ জ্ঞান বিষয়ে। লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের তালিকা প্রকাশ করা হয় বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ওয়েব ঠিকানায়।

লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণদের ঢাকা সেনানিবাসে আইএসএসবিতে অংশ নিতে হবে। পরীক্ষার তারিখ www.issb-bd.org ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে। চার দিনের আইএসএসবি পরীক্ষা হয়। প্রথম দিন সকালে বুদ্ধিমত্তা পরীক্ষা ও পিকচার পারসেপশন অ্যান্ড ডেসক্রিপশন টেস্ট (পিপিডিটি) নেওয়া হয়। এ দুই পরীক্ষার ওপর ভিত্তি করে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। দুপুরে দ্বিতীয় ধাপের প্রার্থীদের মনস্তাত্ত্বিক পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়। এরপর লিখতে হয় নির্দিষ্ট বিষয়ের ওপর বাংলা ও ইংরেজিতে রচনা।

দ্বিতীয় দিনে নির্দিষ্ট বিষয়ের ওপর বাংলা ও ইংরেজিতে দলগত আলোচনা, বক্তৃতা, শারীরিক সামর্থ্য পরীক্ষা ও মৌখিক পরীক্ষায় অংশ নিতে হয়। তৃতীয় দিন অংশ নিতে হয় প্ল্যানিং ও কমান্ড টেস্টে। এরপর নেওয়া হয় মৌখিক পরীক্ষা। চতুর্থ দিন ফল ঘোষণা করা হয়। উত্তীর্ণদের দেওয়া হয় গ্রিন কার্ড, বাদ পড়লে রেড কার্ড। আইএসএসবি পরীক্ষার বিস্তারিত জানা যাবে  www.issb-bd.org ওয়েবসাইটে। আইএসএসবি চলাকালীন চূড়ান্ত স্বাস্থ্য পরীক্ষায় অংশ নিতে হবে। নির্বাচিতরা যোগ দেবেন ক্যাডেট হিসেবে।

প্রশিক্ষণ

নির্বাচিত ক্যাডেটদের বাংলাদেশ মিলিটারি একাডেমিতে থাকতে হবে চার বছর। প্রথম তিন বছর দেওয়া হবে প্রশিক্ষণ। প্রশিক্ষণ শেষে লেফটেন্যান্ট পদে কমিশন দেওয়া হবে। চতুর্থ বছর বিইউপির অধীনে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক, অর্থনীতি, বিবিএ, পদার্থবিদ্যা বিষয়ে স্নাতক সম্মান কিংবা এমআইএসটির অধীনে ইলেকট্রিক্যাল, ইলেকট্রনিকস অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং ও সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং ডিগ্রি নেওয়ার সুযোগ পাওয়া যাবে।

সুযোগ-সুবিধা

লেফটেন্যান্টরা সশস্ত্র বাহিনীর বেতনক্রম অনুযায়ী বেতন-ভাতা পাবেন। রয়েছে বাসস্থান, প্লট ও ফ্ল্যাটপ্রাপ্তির সুবিধা এবং উন্নতমানের চিকিৎসা সুবিধা। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীতে যোগদান, বিদেশে প্রশিক্ষণসহ রয়েছে অনেক সুযোগ-সুবিধা।

 joinbangladesharmy.army.mil.bd ওয়েবসাইটে মিলবে বিস্তারিত তথ্য।

About সম্পাদক

মো: বাকীবিল্লাহ। গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলার পাথরঘাটাতে। থাকেন ঢাকার সাভারে। পড়াশোনা করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে -- সরকার ও রাজনীতি বিভাগ থেকে অনার্স, মাস্টার্স । পরে এলএলবি করেছেন একটা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তাঁর লেখালেখি মূলত: ক্যারিয়ার বিষয়ে। তারই সূত্র ধরে সম্পাদনা ও প্রকাশ করছেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্স নামে এই ম্যাগাজিনটি। এছাড়া জিটিএফসি গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে কর্মরত। ভিডিও তৈরি ও সম্পাদনা, ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক ডিজাইন এবং পাবলিক লেকচারের প্রতি আগ্রহ তাঁর।

View all posts by সম্পাদক →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *