বৃত্তি নিয়ে সুইডেনে পড়াশোনা

0
208

রউফুল আলম
দ্য সুইডিশ ইনস্টিটিউট স্টাডি স্কলারশিপস (এসআইএসএস) সংক্ষেপে আইএস স্কলারশিপ নামে পরিচিত। এই বৃত্তির আবেদন করতে হবে ডিসেম্বরে। প্রস্তুতির সময় এখনই। গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো সংক্ষেপে লিংকসহ নিচে উল্লেখ করা হলো।

১. এই স্কলারশিপ দেওয়া হয় স্নাতকোত্তর পড়ালেখার জন্য। দুই বছরের (চার সেমিস্টার) জন্য বৃত্তি দেওয়া হবে। প্রথমে এক বছরের (দুই সেমিস্টার) বৃত্তি দেওয়া হয়। পরবর্তী সময়ে কোর্স ও সেমিস্টারের অগ্রগতির ওপর ভিত্তি করে দ্বিতীয় বছরের বৃত্তি দেওয়া হয়। কারণ অনেকে যথাসময়ে কোর্স ও পরীক্ষায় ভালো ফলাফল করতে ব্যর্থ হয়। প্রতি মাসে নয় হাজার সুইডিশ ক্রোনা বৃত্তি দেওয়া হয়। ভ্রমণের জন্য এককালীন ১৫ হাজার সুইডিশ ক্রোনা।

২. বাংলাদেশের জন্য কতটি স্কলারশিপ দেওয়া হবে সেটা উল্লেখ করা থাকে না।

৩. আবেদনের প্রথম ধাপেই একটি সাইট সম্পর্কে খুব ভালো করে জেনে নিতে হবে। সাইটটি হলো https://www.universityadmissions.se ; এখান থেকেই শুরু করতে হবে। প্রথমেই এই সাইটে একটি অ্যাকাউন্ট করতে হবে। এটা আবশ্যক। নিজ নিজ অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে আবেদনসহ সব ধরনের তথ্যাদি পাঠাতে হবে হবে।

৪. আবেদন করতে হবে দুই ধাপে। প্রথম ধাপে আবেদনের সময় চলবে ডিসেম্বরের ১ তারিখ থেকে ১৫ তারিখ পর্যন্ত। প্রথম ধাপে নির্বাচিত হলে দ্বিতীয় ধাপে আবেদন করতে হবে ফেব্রুয়ারির ১ থেকে ১৩ তারিখের মধ্যে। যাঁরা বৃত্তি পাবেন, তাঁদের নাম প্রকাশ করা হবে এপ্রিলে। নির্বাচিতদের আলাদা ই-মেইল করেও জানানো হবে। সেশন শুরু হবে আগামী বছরের আগস্ট মাস থেকে।

৫. প্রথম ধাপে উত্তীর্ণ হলে দ্বিতীয় পর্যায়ে আবেদনের আগে আবেদন ফি বাবদ ৯০০ (নয়শত) সুইডিশ ক্রোনা দিতে হবে। ব্যক্তিগত ডেবিট/ক্রেডিট কার্ড না থাকলেও ব্যাংকের মাধ্যমে আবেদনের টাকা পে/ট্রান্সফার করা যাবে।

৬. চারটি ডকুমেন্ট প্রস্তুত রাখতে হবে এখনই : মোটিভেশন লেটার/কাভার লেটার (Motivation Letter), CV, দুটি রেফারেন্স লেটার, পাসপোর্ট (স্ক্যান)।

৭. CV হতে হবে ইউরোপিয়ান ফরম্যাটে। যেটা বলা হয় ইউরোপাস (Europass); এই ফরম্যাটে সিভি তৈরির জন্য অনুসরণ করুন এই লিংক: https://europass.cedefop.europa.eu/en/documents/curriculum-vitae

৮. মোটিভেশন লেটার এবং রেফারেন্স লেটারের ফরম্যাট নিজের ইচ্ছেমতো হলে হবে না। সেটার জন্যও নির্দিষ্ট ফরম্যাট (SI format) অনুসরণ করতে হবে। নির্দিষ্ট ফরম্যাট খুঁজে নিন এই লিংকে : https://eng.si.se/?s=Motivation+letter&submit=Search

৯. IELTS/TOFEL ছাড়াও অনেক প্রোগ্রামেই আবেদন করা যায়। সে ক্ষেত্রে আপনার স্টাডি অব মিডিয়াম (স্নাতক/স্নাতকোত্তর) ইংরেজিতে হতে হবে এবং সেটির প্রমাণ লাগবে। বিভাগের প্রধান কর্তৃক স্বাক্ষরিত পত্রের মাধ্যমে সেটি নিশ্চিত করা যেতে পারে।

১০. বৃত্তি পেতে হলে কমপক্ষে দুই বছরের কাজের অভিজ্ঞতা প্রয়োজন। কর্ম-অভিজ্ঞতা শুধু চাকরি নয়; বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী কাজ, ইন্টার্নশিপ কিংবা সামাজিক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে লিডারশিপও হতে পারে।

১১. এসআই স্কলারশিপ-বিষয়ক বিস্তারিত আরো জানতে হলে অনুসরণ করতে হবে যে লিংক : https://eng.si.se/areas-of-operation/scholarships-and-grants/

লেখক : স্টকহোম বিশ্ববিদ্যালয়, সুইডেন। ই-মেইল : [email protected]

ঘোষণা

আপনিও লিখুন


প্রিয় পাঠক, আপনিও লিখতে পারেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্সে। শিক্ষা, ক্যারিয়ার বা পেশা সম্পর্কে যে কোনো লেখা আমাদের কাছে পাঠিয়ে দিন। পাঠাতে পারেন অনুবাদ লেখাও। তবে সেক্ষেত্রে মূল উৎসটি অবশ্যই উল্লেখ করুন লেখার শেষে। লেখা পাঠাতে পারেন ইমেইলে অথবা ফেসবুক ইনবক্সে। ইমেইল : [email protected]
Previous articleঅনলাইন নিরাপত্তায় গুগলের টিপস
Next articleসৃজনশীল মানুষের কিছু বৈশিষ্ট্য
গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলার পাথরঘাটাতে। থাকেন ঢাকার সাভারে। পড়াশোনা করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে- সরকার ও রাজনীতি বিভাগ থেকে অনার্স, মাস্টার্স । পরে এলএলবি করেছেন একটা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তাঁর লেখালেখি মূলত: ক্যারিয়ার বিষয়ে। তারই সূত্র ধরে সম্পাদনা ও প্রকাশ করছেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্স নামে এই ম্যাগাজিনটি। এছাড়া জিটিএফসি গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে কর্মরত। ভিডিও তৈরি ও সম্পাদনা, ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক ডিজাইন এবং পাবলিক লেকচারের প্রতি আগ্রহ তাঁর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here