সহকারী শিক্ষা অফিসার পদে নিয়োগ পরীক্ষার প্রস্তুতি

0
72

প্রিলিমিনারি পরীক্ষার মান বণ্টন : সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার পদে প্রার্থীদের ১০০ নম্বরের এমসিকিউ টাইপের প্রিলিমিনারি পরীক্ষা দিতে হবে। এতে প্রশ্ন থাকবে ১০০টি। এর মধ্যে বাংলায় ২৫, ইংরেজিতে ২৫, সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক) অংশে ২৫ ও গণিতে ২৫ নম্বর থাকবে। প্রতি প্রশ্নের মান ১। তবে প্রতিটি ভুল উত্তরের জন্য .৫০ নম্বর কাটা যাবে। পরীক্ষার জন্য সময় পাবেন ১ ঘণ্টা।

বিষয়ভিত্তিক প্রস্তুতি যেভাবে নেবেন
বাংলা : বাংলা বিষয়ে ব্যাকরণ থেকে শুদ্ধিকরণ, সমার্থক শব্দ, বিপরীতার্থক শব্দ, সন্ধি, প্রত্যয়, সমাস, ধ্বনি, বাক্য, বাগধারা, বর্ণ, শব্দ, বাক্য সঙ্কোচন থেকে প্রশ্ন আসবে। এ ছাড়া সাহিত্য অংশে প্রাচীন যুগ, মধ্যযুগ ও আধুনিক যুগের কবি-সাহিত্যিকদের সাহিত্যকর্ম ও জীবনী থেকে প্রশ্ন আসে। এ জন্য পঞ্চম, অষ্টম ও নবম-দশম শ্রেণীর বোর্ডের বাংলা প্রথম ও দ্বিতীয় পত্রের পাঠ্যবই ভালো করে পড়বেন।

ইংরেজি : ইংরেজি বিষয়ে Parts of speech, Narration, Voice Change, Preposition, Right form of Verb, Transformation, Correct Sentence, Synonyms, Antonyms, Phrase and Idioms, Translation থেকে প্রশ্ন আসে। এ অংশে ভালো করতে হলে অবশ্যই অষ্টম ও নবম-দশম শ্রেণীর গ্রামার বই ভালো করে পড়তে হবে।

সাধারণ জ্ঞান (বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক) : সাধারণ জ্ঞান অংশের বাংলাদেশ বিষয়াবলিতে মুক্তিযুদ্ধ, সংবিধান, জাতীয় সংসদ, সাম্প্রতিক ঘটনালি, অর্থনৈতিক সমীক্ষা, কৃষ্টি ও সভ্যতা, শিল্প ও বাণিজ্য, কৃষি, সরকার ও রাজনৈতিক ব্যবস্থা এবং অর্থনীতি থেকে প্রশ্ন আসে। আন্তর্জাতিক বিষয়াবলিতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মুদ্রা, রাজধানী, পার্লামেন্ট, দিবস, সম্মেলন, পুরস্কার, খেলাধুলা ও সাম্প্রতিক ঘটনাপ্রবাহ, আন্তর্জাতিক সংস্থা, বিশ্বরাজনীতি, বিশ্বযুদ্ধ, গোয়েন্দা সংস্থা এবং সীমারেখা থেকে প্রশ্ন আসে। এ জন্য নিয়মিত দৈনিক পত্রিকা পড়া ছাড়াও মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শ্রেণীর ইতিহাস, বাংলাদেশ ও বিশ্ব পরিচয় বই পড়তে হবে।

গণিত : উপজেলা শিক্ষা অফিসার নিয়োগ পরীক্ষায় গণিত বিষয়ে পাটীগণিতে ঐকিক নিয়ম, শতকরা, ল.সা.গু ও গ.সা.গু, লাভ-ক্ষতি, সুদ-কষা, অনুপাত-সমানুপাত, বীজগণিতে উৎপাদক নির্ণয়, মান নির্ণয়, সূচক, অসমতা, সমীকরণ ও লগারিদমের সূত্রের প্রয়োগ, জ্যামিতিতে রেখা, কোণ, বৃত্ত, ত্রিভুজ, চতুর্ভুজ সংক্রান্ত উপপাদ্য ও পরিমিতি থেকে প্রশ্ন আসে। গণিতে প্রস্তুতির জন্য অষ্টম থেকে নবম-দশম শ্রেণীর বোর্ডের গণিত পাঠ্যবইটি নিয়মিত অনুশীলন করলেই হবে।

লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষা : প্রিলিমিনিয়ারি পরীক্ষায় পাস করার পর প্রার্থীদের ২০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। এতে বাংলায় ৫০, ইংরেজিতে ৫০, গণিত ও মানসিক দক্ষতায় ৬০ এবং সাধারণ জ্ঞানে ৪০ নম্বর থাকবে। লিখিত পরীক্ষায় গড় পাস নম্বর ৪৫%। লিখিত পরীক্ষায় পাস করলে প্রার্থীদের ৫০ নম্বরের মৌখিক পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে। মৌখিক পরীক্ষায় পাস নম্বর ৪০%। লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় আলাদাভাবে পাস করতে হবে।

ঘোষণা

আপনিও লিখুন


প্রিয় পাঠক, আপনিও লিখতে পারেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্সে। শিক্ষা, ক্যারিয়ার বা পেশা সম্পর্কে যে কোনো লেখা আমাদের কাছে পাঠিয়ে দিন। পাঠাতে পারেন অনুবাদ লেখাও। তবে সেক্ষেত্রে মূল উৎসটি অবশ্যই উল্লেখ করুন লেখার শেষে। লেখা পাঠাতে পারেন ইমেইলে অথবা ফেসবুক ইনবক্সে। ইমেইল : [email protected]
Previous articleসহ: উপজেলা শিক্ষা অফিসার পদে আবেদনের নিয়মাবলী
Next articleভাইভা বোর্ডে করণীয়
গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলার পাথরঘাটাতে। থাকেন ঢাকার সাভারে। পড়াশোনা করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে- সরকার ও রাজনীতি বিভাগ থেকে অনার্স, মাস্টার্স । পরে এলএলবি করেছেন একটা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তাঁর লেখালেখি মূলত: ক্যারিয়ার বিষয়ে। তারই সূত্র ধরে সম্পাদনা ও প্রকাশ করছেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্স নামে এই ম্যাগাজিনটি। এছাড়া জিটিএফসি গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে কর্মরত। ভিডিও তৈরি ও সম্পাদনা, ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপমেন্ট, গ্রাফিক ডিজাইন এবং পাবলিক লেকচারের প্রতি আগ্রহ তাঁর।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here