হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্টে ক্যারিয়ার

 

অনেকে বলেন, দুনিয়ার সবচেয়ে কঠিন কাজ মানুষ পরিচালনা। আজকের দিনে মানুষ পরিচালনার বিষয়টিই এসেছে হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট তথা মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনা নামে। এটি বর্তমানেএতটাই বিস্তৃত হয়েছে যে ক্যারিয়ারের একটি ক্ষেত্র হিসেবেও আবির্ভূত হয়েছে। কারণ একটি প্রতিষ্ঠন কতটা সফলতা নির্ভর করে সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার ওপর। এ সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনায় মানবসম্পদ ব্যবস্থাপনার বিকল্প নেই। প্রতিষ্ঠানে যে মানুষটি কাজ করবে তাকে সুন্দরভাবে পরিচালনা কিভাবে সর্বোচ্চ লাভ করা যায় তার ব্যবস্থাপনাও এ বিভাগে। হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বা এইচ আর এম আবার কোথাও শুধু এইচ আর বিভাগ রয়েছে। লিখেছেন এস এম মাহফুজ

হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বিভাগে একজন প্রধান ম্যানেজার থাকেন, যাকে বলে এইচআর ম্যানেজার। এ ম্যানেজারের সাথে আরো দু’জন সহকারী ম্যানেজার থাকেন। প্রতিষ্ঠানে আকার অনুযায়ী কোথাও আরো কম বা বেশি সহকারী বা সহযোগী থাকতে পারে।

কাজের ধরন

সাদামাটা কথায় একটি প্রতিষ্ঠানের সব কর্মকর্তা-কর্মচারী পরিচালনাই এ বিভাগের কাজ। প্রতিষ্ঠানের পরিচালক ও ব্যবস্থাপকদের সাথে সব কর্মীর সম্পর্কের ও কাজ করে বিশেষ করে প্রতিষ্ঠানে নতুন কোনো কর্মী লাগবে কি না, লাগলে কোন বিভাগে লাগবে, কতজন লাগবে। এ নতুন কর্মী নিয়োগের ব্যবস্থাপনা, অর্থাৎ প্রতিষ্ঠানের কাজের চাহিদা অনুযায়ী নিয়োগকৃত কর্মীদের কী কী গুণ থাকতে হবে। শিক্ষাগত যোগ্যতা কী হবে, অভিজ্ঞতা আবশ্যক ইত্যাদির পাশাপাশি ঠিক কী পদ্ধতিতে নিয়োগ হবে লিখিত পরীক্ষা, নাকি শুধু মৌখিক ইত্যাদি সব বিষয় দেখে হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বিভাগ। বিভাগটি নতুন কর্মচারী নিয়োগ করেই ক্ষান্ত হচ্ছে না, তাদের প্রশিক্ষণ দেয়া, কাজের উপযোগী করে তোলাও এই বিভাগের কাজ। গোটা প্রতিষ্ঠানের কর্মীদের মাঝে পরিচিতি ঘটানো, সম্পর্ক গড়ে তোলার কাজও এ বিভাগ করে থাকে। কোন কর্মীকে কোন কাজে ভালো মানাবে, কে কোন কাজ ভালো পারবে সে অনুযায়ী কর্ম বণ্টন করে এইচআর। এ জন্য প্রত্যেক কর্মী সম্পর্কে বিভাগের পূর্ণাঙ্গ ধারণা রাখতে হয়। কর্মীদের কাজের মূল্যায়ন এবং তাদের কাজে প্রেষণা সৃষ্টির জন্য ভালোদের পুরস্কার প্রদানের কাজটিও এ বিভাগ করে। প্রত্যেক কর্মীর খবর রাখা, তার নিরাপত্তা, কাজের রেকর্ড, বোনাস নির্ধারণ, ছুটির হিসাব রাখা, আগমন-গমনের হিসাব ইত্যাদি টুকিটাকি সব তথ্যই এ বিভাগের কাছে থাকে। কর্মী ছাঁটাই, বিভাগ পরিবর্তন এমনকি কেউ আড্ডা দিলে তার শাস্তির দায়িত্ব ও এ বিভাগের হাতে।

কী ধরনের প্রতিষ্ঠানে ক্যারিয়ার গড়া যায়

হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বিভাগে বর্তমানে অনেক প্রতিষ্ঠানেই রয়েছে, সব ধরনের ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠান, বড় বড় কোম্পানিতে এ বিভাগ আবশ্যক। যেমন গার্মেন্ট কারখানায়, ব্যাংকব্যবস্থায়, মিডিয়া হাউজে, প্রকাশনা সংস্থায়, এনজিওতে, টেলিকমিউনিকেশন কোম্পানিসহ যেকোনো ছোট-বড় প্রতিষ্ঠানে হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বিভাগটি থাকে। বাংলাদেশের দৃশ্যমান অনেক প্রতিষ্ঠানেই রয়েছে। এর মধ্যে কয়েকটি হলো-
– সব ব্যাংক
– গ্রামীণ, রবি, বাংলালিংকসহ সব অপারেটর
-ওষুধ কোম্পানি
-গার্মেন্ট ফ্যাক্টরি
-যেকোনো শিল্পপ্রতিষ্ঠান ইত্যাদি।

কারা আসবেন

হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট বিভাগে ম্যানেজার হিসেবে কাজ করতে চাইলে ব্যক্তির কিছু গুণ থাকতেই হবে। অন্যভাবে বলা যায়, যেসব ব্যক্তির মাঝে নিম্নলিখিত গুণ ভালোভাবে থাকবে, তারা এ বিভাগে সফল হতে পারবেন্। সেগুলো হলো-
নেতৃত্ব দেয়ার ক্ষমতা।
ভালো যোগাযোগ দক্ষতা।
কাউকে দেখেই তার অবস্থা বুঝে ফেলার ক্ষমতা
অন্যদের ভালোবাসার ক্ষমতা
সবাইকে একচোখে দেখতে পারা
ইত্যাদি নানা যোগ্যতার পাশাপাশি ব্যক্তি জীবনে সৎ থাকা, পক্ষপাতদুষ্ট না হওয়া, কম্পিউটার-ইন্টারনেটসংক্রান্ত ধারণা, সত্যবাদী, সময়নিষ্ঠ, বিচক্ষণসম্পন্নরা এখানে সফল হবেন।
ক্যারিয়ার হিসেবে এইচআরএম
ক্যারিয়ার হিসেবে এইচআরএম মোটেও খারাপ নয়। এখানে ক্যারিয়ার গড়ার মাধ্যমে ব্যক্তি যেমন অন্য মানুষকে জানাশোনার, শেয়ার, করার বিষয়টি সহজে করতে পারেন। তেমনি এখানে মাইনেও খুব খারাপ না। আপনি এ বিভাগে ফ্রেশম্যান হিসেবে ১৫-২০ হাজার টাকায় চাকরি শুরু করতে পারেন। আপনার যোগ্যতা ও অভিজ্ঞতার আলোকে টাকার অঙ্ক তো বাড়বেই। আর দিন দিন আপনার পদোন্নতি ঠেকায় কে। সহকারী থেকে আপনি প্রধান ম্যানেজার হবেনÑ তা বলাই যায়। আপনার প্রতিষ্ঠান ভেদে বেতন ৫০ থেকে ৯০ হাজার টাকাও হতে পারে।
পড়াশোনা ও প্রশিক্ষণ
আপনি কোন প্রতিষ্ঠানে এইচ আর বিভাগে যোগ দিতে এ বিষয়ে আপনার প্রাতিষ্ঠানিক পড়াশোনার প্রয়োজন রয়েছে। এ জন্য বাংলাদেশের সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে বিবিএ, এমবিএ কোর্সের মধ্যে এইচআরএম পড়িয়ে থাকে। অনেকে বেসরকারি যেমনÑ বিশ্ববিদ্যালয় নর্থসাউথ, ইস্টওয়েস্ট, স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে এ বিষয়ে পড়ানো হয়। অন্যগুলোতেও বিবিএ’র সাথে পড়ায়। এ বিষয়ে প্রশিক্ষণেরও ব্যবস্থা রয়েছে, কয়েকটি প্রতিষ্ঠান সে প্রশিক্ষণের কাজ করে।
বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট, সোবহানবাগ, মিরপুর, ঢাকা
বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব হিউম্যান রিসোর্স ম্যানেজমেন্ট, ফার্মগেট, ঢাকা
ইনস্টিটিউট অব পার্সোনাল ম্যানেজমেন্ট, ফার্মগেট, ঢাকা এবং
বিয়াম ফাউন্ডেশন, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা

About সম্পাদক

মো: বাকীবিল্লাহ। গ্রামের বাড়ি বরগুনা জেলার পাথরঘাটাতে। থাকেন ঢাকার মতিঝিলে। পড়াশোনা করেছেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে -- সরকার ও রাজনীতি বিভাগ থেকে অনার্স, মাস্টার্স । পরে এলএলবি করেছেন একটা বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে। তাঁর লেখালেখি মূলত: ক্যারিয়ার বিষয়ে। তারই সূত্র ধরে সম্পাদনা করছেন ক্যারিয়ার ইনটেলিজেন্স নামে এই ম্যাগাজিনটি। এছাড়া জিটিএফসি গ্রুপের চেয়ারম্যান ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) হিসেবে কর্মরত।

View all posts by সম্পাদক →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *